-Advertisement-

রোগী পালানোকে কেন্দ্র করে দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতাল আবার খবরের শিরোনামে –

দুর্গাপুর পশ্চিমবঙ্গ

সংবাদ ভাস্কর নিউজ ডেস্ক : বিগত কয়েকদিন ধরেই খবরের শিরোনামে একপ্রকার জায়গা বানিয়ে রেখেছে দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতাল | কখনও কতৃপক্ষ আবার কখনও বা রোগী নিরাপত্তা বিভিন্ন বিষয়েই একপ্রকার গোলযোগ লেগেই আছে দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে |ইতিমধ্যেই ব্যাপক কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগে এই হাসপাতালের প্রাক্তন সুপার ডঃ দেবব্রত দাসকে স্বাস্থ দফতর অপসারিত করেছে | একইসাথে সেই রেস কাটতে না কাটতে আবার এক অভিযোগে জড়িয়ে পড়লো দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতাল কতৃপক্ষ |

-Advertisement-

ঘটনার সূত্রপাত বছর ৩৫ এর এক মানসিক ভারসাম্য রোগী দুর্গাপুরের গণতন্ত্র কলোনির বাসিন্দা দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল বুকে ব্যাথা নিয়ে | বৃহস্পতিবার খুব সকালে দুর্গাপুরের মামরা বাজার সংলগ্ন সুভাষপল্লির কাছে একটি নর্দমা থেকে ওই মানসিক ভারসাম্য রোগী সৌমেন দাসের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয় | পুলিশ ওই ব্যক্তির মৃতদেহটি উদ্ধার করে দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে ময়না তদন্তের জন্যে নিয়ে যায় | এখন একটা সবচাইতে বড় প্রশ্ন হলো সরকারী হাসপাতালের নিরাপত্তা থাকা সত্ত্বেও কিভাবে ওই মানসিক ভারসাম্য রোগী হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে পড়লো | সৌমেনের পরিবার সূত্রে জানা গেছে যে তার ছেলে একপ্রকার সুস্থই ছিল | বুধবার তার এক্সরে করাও হয়েছিল হাসপাতালে | কিন্তু বৃহস্পতিবার সকালবেলায় তার এক প্রতিবেশী এসে সৌমেনের ঘরে খবর দেয় যে সৌমেন স্থানীয় সুভাষপল্লির একটি নর্দমায় পরে আছে |

তড়িঘড়ি সৌমেনের পরিবারের লোকেরা ঘটনাটহলে পৌঁছয় ও সৌমেনকে নর্দমায় মৃত অবস্থায় পরে থাকতে দেখে | ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে সৌমেনের মৃতদেহটি দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে ময়না তদন্তের জন্য নিয়ে যায় | এই অদ্ভুত ঘটনার পরে একটাই প্রশ্ন একাধিক বার উঠে আসছে যে কিভাবে হাতে সৌমেনের স্যালাইন এর চ্যানেল লাগানো থাকা সত্ত্বেও হাসপাতালের গেট দিয়ে সৌমেন বেরোলো কি করে | যখন সৌমেন হাসপাতালের গেট দিয়ে বেরিয়ে গিয়েছিলো তখন কি দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালের গেটে কোনও নিরাপত্তারক্ষী ছিলোনা , তখন কি নিরাপত্তারক্ষীরা হাসপাতালের গেটের দ্বায়িত্ব ছেড়ে অন্য কোনও জায়গায় চলে গেছিলো | তবে এই সম্পূর্ণ ঘটনাটির দ্বায় স্বীকার করে নিয়েছেন বর্তমান দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালের দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত সুপার ইন্দ্রজিৎ মাঝি | একইসাথে ইন্দ্রজিৎবাবু এই সম্পূর্ণ ঘটনাটির পূর্ণ তদন্তেরও আশ্বাস দিয়েছেন |

-Advertisement-
Share this page:

Leave a Reply

Your email address will not be published.

-Advertisement-