-Advertisement-

খুন করে একাধিক লাশ কুমিরকে খাইয়ে ধৃত আয়ুর্বেদিক চিকিৎসক –

দেশের খবর শিরোনাম এই মুহূর্তে

সংবাদ ভাস্কর নিউজ ডেস্ক : এক আয়ুর্বেদিক চিকিৎসক শতাধিক মানুষকে খুন করে তাদের মৃতদেহগুলি কুমির কে খাইয়ে ধরা পড়ল চিকিৎসক ।
পুলিশ সূত্রে খবর : অভিযুক্ত ডাক্তারের নাম দেবেন্দ্র শর্মা । দিল্লির বাপ্রলা এলাকার বাসিন্দা । 62 বছর বয়সী ওই চিকিৎসক আগে আলীগড় থাকতেন । ক্রাইম ব্রাঞ্চের ডিসিপি রাকেশ পাউরিয়া জানিয়েছেন – ইন্সপেক্টর রাম মনোহর এর নেতৃত্বে তদন্তকারীরা ওই চিকিৎসককে গ্রেফতার করেছেন । জেরায় দেবেন্দ্র পুলিশকে জানিয়েছেন – 1984 সালে সে বিহার থেকে আয়ুর্বেদিক চিকিৎসকের ডিগ্রি অর্জন করেছিলেন , এরপর জয়পুরে জনতা হাসপাতাল নামে উনি একটি ক্লিনিক খোলেন । তদন্তে জানা যায় যে এই চিকিৎসক নিজের ক্লিনিক সেইভাবে চালাতে পারেনি এবং ইনকাম করতে পারেনি তাই আয় বাড়াতে সে একটি গ্যাসের এজেন্সিও চালু করেছিলেন ।
1994 সালে সে গ্যাস সংস্থার ডিলারশিপ পেতে সে 11 লক্ষ টাকা খরচ করে তিনি প্রতারণার শিকার হয় এবং লক্ষাধিক টাকা গচ্চা যায় ।
নিজের হারানো টাকা উদ্ধার করতে এসে আবারো আলীগড়ে একটি নকল গ্যাস সংস্থা চালু করে । ওই নকল গ্যাস এজেন্সি চালু করে সে শুরু করেছিল মানুষ মারার খেলা । গ্যাসের যোগান দিতে সিলিন্ডার বোঝাই ট্রাক চালকদের
সে খুন করত । আর সেই ট্রাকভর্তি গ্যাস সিলিন্ডার সে লুট করত । নকল গ্যাস এজেন্সি খোলার জন্য তার জেল হয়েছিল সেই সময় কিন্তু ছাড়া পাওয়ার পর সে আবার নকল গ্যাস এজেন্সি চালায় । তাকে আবারও গ্রেফতার করা হয় ।
তারপর জেল থেকে বেরিয়ে এসে সে কিডনি পাচারকারীদের সঙ্গে যুক্ত হন । এবং জয়পুর ও গুরুগ্রামের বিভিন্ন জায়গায় এসে 125 জনের কিডনি প্রতিস্থাপন করে ।
একেকটি কিডনি প্রতিস্থাপন করে সে 5 থেকে 7 লক্ষ টাকা আয় করত । এরপর 2004 সালে গুরু গ্রামের আনমোল নার্সিংহোমে অভিযান চালিয়ে কিডনি পাচারের অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছিল ।
সেই মামলায় দীর্ঘদিন জয়পুরের জেলে বন্দি ছিল দেবেন্দ্র । কিছুদিন আগে প্যারোলে মুক্তি পেয়ে পালিয়ে যাওয়ার পর ফের তাকে গ্রেফতার করা হলো ।
AG

-Advertisement-
Share this page:

Leave a Reply

Your email address will not be published.

-Advertisement-