-Advertisement-

দেশের জাতীয় পতাকা কে অবমাননা লালকেল্লায়। কৃষক আন্দোলনের নিন্দার ঝড় বইছে সোশ্যাল মাধ্যমে –

দেশের খবর শিরোনাম এই মুহূর্তে

সংবাদ ভাস্কর নিউজ ডেস্ক : ট্রাক্টর চাপা দিয়ে পুলিশকে মারার চেষ্টা। কৃষক বিক্ষোভ নিয়ে প্রশ্ন উঠছে কৃষকদের অভ্যন্তরে।

-Advertisement-

কৃষক আন্দোলনে আজ রণক্ষেত্র চেহারা নিল দিল্লির হাইকোর্ট ভবন চত্বর। ট্রাক্টর যাত্রার দিল্লি পুলিশের অনুমতি মিললেও কেন হিংসাত্মক আন্দোলন তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে কৃষকদের অভ্যন্তরে।

আন্দোলনকারীরা একাধিকবার সহ সরকারি সম্পত্তিতে ভাঙচুর চালায়। এরপর দিল্লি পুলিশ লাঠিচার্জ করে ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করে আন্দোলনকারীদের।

-Advertisement-

তারপরেই আন্দোলনে চেহারা নিলো রণক্ষেত্রের। আন্দোলনকারীরা পুলিশদের মারধর করে এবং ট্রাক্টর চাপা দিয়ে মেরে ফেলার চেষ্টা করে, পুলিশকর্মীরা উদভ্রান্তের মতো দৌড়ে প্রাণ রক্ষার চেষ্টা করেন বেশকিছু পুলিশকর্মী এই ঘটনা আহত হয়েছেন তাদেরকে স্থানীয় সরকারি হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করানো হচ্ছে।

-Advertisement-

এ ব্যাপারে সারা ভারত কৃষক সভার সাধারণ সম্পাদক হান্নান মোল্লাকে প্রশ্ন করায় তিনি জানিয়েছেন, যারা হিংসাত্মক আন্দোলন করছেন তাদের সমর্থন করিনা। এই আন্দোলন ঘিরে গভীর ষড়যন্ত্রের সম্ভাবনা রয়েছে মনটাই জানিয়েছেন বিবৃতিতে।

হিংসা ভাঙচুর পুলিশের ওপর হামলার মতো ঘটনা তো ছিলই শেষে যোগ হল লালকেল্লার দখল নেওয়ার মতো কান্ড। সাধারণতন্ত্র দিবস এই বিক্ষোভকারীরা লালকেল্লায় তিরঙ্গা এর পরিবর্তে নিশান সাহিবের পতাকা ওড়ালেন, যা জাতীয় পতাকাকে অবমাননা করা।

স্বাভাবিকভাবেই সাধারণতন্ত্র দিবসে বিক্ষোভকারীরা লালকেল্লায় অন্য পতাকা ওড়ালেন এবং হিংসাত্মক আন্দোলন করলেন তার থেকে দুরত্ব বাড়ানো শুরু করলো রাজনৈতিক দলগুলি।

প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী বলেন হিংসা কখনো কোনো সমস্যার সমাধান হতে পারে না। এছাড়া বিক্ষোভকারী কৃষকদের অন্যতম সংগঠন ভারতীয় কিষান ইউনিয়নের নেতা রাকেশ টিকটেতের দাবি, যারা বিক্ষোভের হিংসা ছড়াচ্ছে, তারা আসলে রাজনৈতিক দলের সদস্য।

Share this page:

Leave a Reply

Your email address will not be published.

-Advertisement-