-Advertisement-

প্রেমে প্রত্যাখ্যান ১৪ বার কিশোরীকে ছুরির আঘাত , রেললাইনে অভিযুক্তের দেহ

এক নজরে


সংবাদ ভাস্কর ডিজিটাল ডেস্ক : প্রেমের প্রস্তাব নাকচ করে দেওয়ায় পর পর ১৪ বার ছুরি চালিয়ে এক কিশোরীকে খুন করল তামিলনাড়ুর এক যুবক। অভিযুক্তের খোঁজে নেমে মঙ্গলবার একটি রেললাইনের উপর তাঁর দেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশ। কিশোরীকে খুনের পর সে আত্মঘাতী হয়েছে, নাকি তাকে কেউ খুন করেছে, তা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা।

-Advertisement-


পুলিশ সূত্রে খবর, তামিলনাড়ুর ত্রিচিতে রেললাইনের উপর বছর বাইশের কেশবনের দেহ পাওয়া গিয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে একাদশ শ্রেণির এক ছাত্রীকে খুনের অভিযোগ রয়েছে।
১৬ বছরের ওই কিশোরীও ত্রিচির বাসিন্দা।

আথিকুলমে তাঁর বাড়ি। পরিবারের অভিযোগ, দীর্ঘ দিন ধরেই তাঁদের মেয়েকে উত্ত্যক্ত করছে কেশবন। বার বার তাকে প্রেমের প্রস্তাব দিলেও বরাবরই তা নাকচ করে দিয়েছিল মেয়েটি। তা সত্ত্বেও কিশোরীর পিছু ছাড়েনি কেশবন। বছরখানেক আগে কিশোরীকে অপহরণের দায়ে পকসো আইনে জেলও হয় অভিযুক্তের।

-Advertisement-

সম্প্রতি জেল থেকে বেরিয়ে আবারও মেয়েটিকে প্রেম নিবেদন করে সে। আবারও প্রত্যাখ্যাত হলে এ বার কিশোরীর উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে এলোপাথাড়ি ছুরি চালিয়ে দেয় কেশবন। পর পর ১৪ বার!
কিশোরীর আত্মীয়েরা জানিয়েছেন, একাদশ শ্রেণির পরীক্ষার পর তাঁদের বাড়িতে আসার কথা ছিল ছাত্রীটির। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, একটি ওভারব্রিজের কাছের রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় ওই কিশোরীর পথ আটকে প্রেম নিবেদন করে কেশবন। তাতে রাজি না হওয়ায় বার বার ছুরি দিয়ে কিশোরীকে আঘাত করতে থাকে সে। রক্তাক্ত অবস্থায় রাস্তায় লুটিয়ে পড়ে কিশোরী। এর পর সেখানেই ছুরিটি ফেলে রেখে চম্পট দেয় কেশবন।

-Advertisement-


ঘটনার তদন্তে তিনটি দল গঠন করে অভিযুক্তের খোঁজ শুরু করেছিল তামিলনাড়ু পুলিশ। তবে মঙ্গলবার রাতে মানাপ্পারাইয়ের কাছে একটি রেললাইনে তার দেহ পাওয়া যায়। পাশেই পড়েছিল তার মোবাইল ফোনটি। সেই সূত্রেই কেশবনের পরিবার দেহটি সনাক্ত করে। তবে একটি নিছকই দুর্ঘটনা না আত্মহত্যা, নাকি কেশবনকে কেউ খুন করেছে, তার তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

Share this page:

Leave a Reply

Your email address will not be published.

-Advertisement-